সারাবাংলা

লকডাউনে সন্তানদের খাবার দিতে না পেরে কস্টে বাবার আত্মহত্যা!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সন্তান খাবারের জন্য কাঁদছে আর পিতা হয়ে তাদের মুখে খাবার তুলে দিতে না পারার কস্ট হয়তো এক অভাবি পিতাই বুজে। দেশে চলমান লকডাউনে কাজ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেলে অভাবের কারণে পারিবারিক সমস্যা বেড়ে যায়। সেই সমস্যার জের ধরেই মুন্সিগঞ্জ সদরে এক দিনমজুর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

রোববার (৪ জুলাই) দুপুর ২টার দিকে সদর উপজেলার পশ্চিম মুক্তারপুর এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ব্যক্তির নাম দ্বীন ইসলাম।সে বরিশাল জেলার কাউনিয়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি মা, স্ত্রী ও দুই ছেলেমেয়ে নিয়ে মুক্তারপুর এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।
পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, করোনার কারণে কাজ না থাকায় সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন দ্বীন ইসলাম। এ নিয়ে স্ত্রী শাহিদা বেগমের সঙ্গে তার কলহ আরও বেড়ে যায়। রোববার (৪ জুলাই) সকালে ফের স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া হয়। এ সময় স্ত্রীকে ঘর থেকে বের করে দেন দ্বীন ইসলাম। পরে দরজা বন্ধ করে ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।
নিহতের স্ত্রী শাহিদা বেগম বলেন, দেশে চলমান লকডাউনে কাজ ছিল না। ঘরে বাজার-সদাই কিছুই নেই। পোলাপাইনরে খাওয়াতে পারছিলাম না। সংসারে অভাব দেইখা মনে করছে পুলাপানরে খাওয়াইতে পারি না, বাইচা থাইকা কী করুম। উনি তো মইরা গেছে, আমি কি করুম? লকডাউন খুললে কাজ করে আমাদের খাওয়াইতে পারত। আমি তো তাও পারুম না।
এ বিষয়ে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
error: Alert: Content selection is disabled!!