নগরজীবনলিডসারাবাংলা

গাজীপুরে ফিরতি মানুষের ঢল, বাসের পরিবর্তে ট্রাক সাথে ভোগান্তি

 

এম এ হানিফ রানা, স্টাফ রিপোর্টার

দেশের বিভিন্ন স্হান হতে নিজ কর্মে ফিরতে শুরু করেছে মানুষজন। ১লা আগস্ট গার্মেন্টস ও শিল্প কারখানা খোলা। তাই ফিরতেই হবে কর্মে এ এক অদৃশ্য শর্তের জালে আবদ্ধ। সকাল থেকেই দেখা গেছে ঘরমুখো মানুষের ফিরতি চাপ। এ যেন সেই চীরচেনা শহরের চিএ। রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা সহ গাজীপুরে প্রবেশ করার সব রাস্তাতেই মানুষের চাপ ছিলো। ময়মনসিংহ রোড, কোনাবাড়ী রোড,ঢাকা টু গাজীপুর, নরসিন্দী রোড থেকেও মানুষের বারতি চাপ লক্ষ করা গেছে। রাজেন্দ্র পুর চৌরাস্তায় সকাল থেকেই মানুষের ঘড়ে ফিরার জন্য বিভিন্ন যানবাহনে আসতে শুরু করেছে। বাসের বিপরীত বাহন হিসেবে বিভিন্ন ট্রাকে ভরে ভরে আসতে শুরু করেছে মানুষজন। কেওবা সিনএজি, অটো রিজার্ভ করেও আসতে দেখা গেছে। নিরাপদ দূরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধির কোন বালাই নেই। দ্বায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা গন কখনো তাদের থামিয়ে দিচ্ছেন গাড়ি আবার কখনও মানবতার জন্য ছেরেও দিচ্ছেন। কারন যেহুতে ১লা আগস্ট গার্মেন্টস ও শিল্প কারখানা খোলা তাই যেভাবেই হোক আসতে হবে সেটা বিবেচনার বিষয়।
এই কঠোর লকডাউনে এই ভোগান্তি সহ্য করে কর্মে আসা প্রসংগে জানতক চাইলে সহিদ নামের এক যাএী বলেন,, আমরা আছি সাকের করাতের মাঝে এদিকেও কাটে আবার ওদিকেও কাটে। কোন দিকই শান্তি নাই। সরকার লকডাউন দিছে। তারা কি আমাদের কথা চিন্তা করেছে। হুটহাট করে লকডাউন দিচ্ছে আমরা কি খাই, কই টাকা পাই,কিভাবে চলি একবারও কি খোজ নিয়েছে। এখন আবার গার্মেন্টস খোলা কিন্তু গাড়ি বন্ধ তাহলে কিভাবে আসবো আর চাকরি চলে গেলে বউ বাচ্চাকে কিভাবে বাঁচাবো। রিজার্ভ নিয়েও আসা যাচ্ছে না। কয়েক জায়গায় গাড়ি পাল্টাতে হচ্ছে। আবার পুলিশ বারিও মারে। সাধারণ মানুষ করোনায় যা মরবে তার বেশি মরবে না খেয়ে আর বউ সন্তানদের মুখে খাবার না দিতে পেরে আত্মহত্যা করে। যেখানে ৫০ টাকা ভাড়া সেখানে লাগছে ১০০০ টাকা ভাড়া তাহলে এই টাকা কই পাবো বলেন। কাজ নাই কর্ম নাই, সাহায্য সহযোগিতা নাই দিচ্ছে শুধু লকডাউন। আমদের সঠিক ভাবে সহযোগিতা করুক তবে আমরাও ঘর থেকে বের হবো না।
একি চিএ গাজীপুর চৌরাস্তা, বোর্ড বাজার, কোনাবাড়ী চন্দ্রা সহ সর্বত্র। সার্বিক অর্থে লকডাউন পায়নি তার স্বার্থকতা। মানুষ মানেনি লকডাউন। চালচিএ দেখে এটাই প্রতিয়মান হয় যে, পেটের খুদার কাছে কোন লকডাউনই বাধা আসগে পারবে না। তাই সরকারের এই বিষয়ে আরো ভালোভাবে নজর দেয়া উচিত বলে মনে করেন সাধারণ মানুষ।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
error: Alert: Content selection is disabled!!