আন্তর্জাতিক

এবার লিঙ্গ নিরপেক্ষ জাতীয় পরিচয়পত্র চালু করলো আর্জেন্টিনা

বাংলার রাজপথ ডেস্কঃ

দক্ষিণ আমেরিকার প্রথম দেশ হিসেবে আর্জেন্টিনা। এবার তারা এক ব্যাতিক্রমি উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন সেই দেশের সরকার। সম্প্রতি লিঙ্গনিরপেক্ষ জাতীয় পরিচয়পত্র চালু করেছে। লিঙ্গ নির্ধারণের ঘরে ‘মেল’, ‘ফিমেল’-এর সঙ্গে ‘এক্স’ যুক্ত করেছে তারা। অর্থাৎ, যেসব ব্যক্তি নিজেদের পরিচয় নারী বা পুরুষ হিসেবে দিতে চান না, তারা ‘এক্স’ অপশন ব্যবহার করতে পারবেন। এমনকি অন্যান্য সরকারি নথিতেও তারা লিঙ্গনিরপেক্ষ পরিচয় ব্যবহার করতে পারবেন। খবর, রয়টার্স।
সম্প্রতি দেশটির রাষ্ট্রপতি, উইমেন, জেন্ডার অ্যান্ড ডাইভার্সিটি বিষয়ক মন্ত্রী এবং অন্যান্য কর্মকর্তাকে সরবরাহ করা হয়। এই উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি আলবার্তো ফার্নান্দেজ বলেন, ‘একজন মানুষের নারী ও পুরুষের পাশাপাশি অন্যান্য পরিচয় রয়েছে এবং তাদেরও সমান শ্রদ্ধা পাওয়া উচিত। আশা করি আজ আমরা সেই জায়গায় পৌঁছে গেলাম যেখানে আইডি দেখে বোঝা যাবে সেই ব্যক্তি নারী, পুরুষ নাকি অন্য কিছু’।আর্জেন্টিনার রাষ্ট্রপতিসহ অনেকেই টুইটারে এই সিদ্ধান্তকে ‘অবিশ্বাস্যভাবে উদার’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এদিকে আর্জেন্টিনার এলজিবিটিকিউ গ্রুপ জোনা ফ্যালজিবিটি এক বিবৃতিকে ‘অর্ধ বিস্ময়’ হিসেবে উল্লেখ করেছে। এলজিবিটিকিউ অধিকারকর্মীরা দীর্ঘদিন ধরেই দুটি মাত্র পরিচয় বাদ দিয়ে অন্য পরিচয় যোগ করার জন্য আন্দোলন করে আসছিলেন। তাদের মতে এই ঘোষণা খুব একটা প্রচারণা ছাড়াই হুট করে এসেছে। তাই তাদের মতে এটি এলজিবিটিকিউ কমিউনিটির সদস্যদের জন্য আনন্দের হলেও কিছুটা বিস্ময়ের।
নতুন আইডিধারীদের একজন শানিক লুসিয়ান সোসা বাতিস্তি। সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, এতদিন আইডি চাইলে সেটি দিতে অপ্রস্তুত বোধ করতেন তাই দেখাতেন না। এখন থেকে তিনি নিজের পরিচয়সমৃদ্ধ আইডি দেখাতে পারবেন।

রয়টার্সের সংবাদ অনুযায়ী, আর্জেন্টিনা ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, নিউজিল্যান্ডসহ কয়েকটি দেশের নাগরিক লিঙ্গনিরপেক্ষ পরিচয় অর্থাৎ ‘মেল’, ‘ফিমেল’ এর পাশাপাশি ‘এক্স’ ব্যবহারের ব্যবহারের সুযোগ পান।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
error: Alert: Content selection is disabled!!