আন্তর্জাতিকলিড

আবারো বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

দৈনিক বাংলার রাজপথ ডেস্কঃ

আবারো উর্ধগতি রুপ নিচ্ছে কোভিড ১৯ বা মহামারী করোনা ভাইরাস। চিন্তায় ফেলে দিয়েছে সমগ্র বিশ্বকে। বাংলাদেশে এই মহামারী ঠেকাতে ইতিমধ্যে ঘোষনা করা হয়েছে ” কঠোর লকডাউন “। আগামী ১ লা জুলাুই হতে তা কার্যকর করা হচ্ছে।
চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। তবে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় ৬ হাজার মানুষ। এই সময়ের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ভারতে। অন্যদিকে দৈনিক মৃত্যুতে সোমবারের মতো মঙ্গলবারও ব্রাজিল রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে।
এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৮ কোটি ২১ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৯ লাখ ৪৫ হাজার।
মঙ্গলবার (২৯ জুন) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫ হাজার ৯৩৬ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু কমেছে ২৪ জন। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩৯ লাখ ৪৫ হাজার ৮৫ জনে।
এছাড়া, একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ১২ হাজার ৫৫১ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ২১ লাখ ৭৯ হাজার ৭৬১ জনে।
করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৪৫ লাখ ১১ হাজার ৩৯ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ৬ লাখ ১৯ হাজার ৫৯১ জন মারা গেছেন। লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৫৮ জন। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী এক কোটি ৮৪ লাখ ৪৮ হাজার ৪০২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ১৪ হাজার ২০২ জনের।
অন্যদিকে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯০৭ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ৩ লাখ ১৬ হাজার এবং মারা গেছেন ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৬৬৮ জন।

এছাড়া এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে ৫৭ লাখ ৭০ হাজার ৫৩০ জন, রাশিয়ায় ৫৪ লাখ ৭২ হাজার ৯৪১ জন, যুক্তরাজ্যে ৪৭ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮ জন, ইতালিতে ৪২ লাখ ৫৮ হাজার ৪৫৬ জন, তুরস্কে ৫৪ লাখ ১৪ হাজার ৩১০ জন, স্পেনে ৩৭ লাখ ৯২ হাজার ৬৪২ জন, জার্মানিতে ৩৭ লাখ ৩৪ হাজার ৮১২ জন এবং মেক্সিকোতে ২৫ লাখ ৫ হাজার ৭৯২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এক লাখ ১১ হাজার ১২ জন, রাশিয়ায় এক লাখ ৩৩ হাজার ৮৯৩ জন, যুক্তরাজ্যে এক লাখ ২৮ হাজার ১০৩ জন, ইতালিতে এক লাখ ২৭ হাজার ৫০০ জন, তুরস্কে ৪৯ হাজার ৬৩৪ জন, স্পেনে ৮০ হাজার ৭৮৯ জন, জার্মানিতে ৯১ হাজার ৩৩৬ জন এবং মেক্সিকোতে ২ লাখ ৩২ হাজার ৫৬৪ জন মারা গেছেন।
উল্লেখ্য যে , ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
error: Alert: Content selection is disabled!!